• July 3, 2022

সংসারের হাজারো প্রতিকূলতা সত্ত্বেও উচ্চমাধ্যমিকে ৪৮৮

 সংসারের হাজারো প্রতিকূলতা সত্ত্বেও উচ্চমাধ্যমিকে ৪৮৮

আসমান ডেস্ক :ইচ্ছে থাকলে কি না হয়! কেউ সব সুযোগ সুবিধার অধিকারী হয়েও পিছিয়ে পড়ে কেউ আবার এত প্রতিকূলতার মধ্যেও সংসারের হাজারো ব্যস্ত্যতা সামলে এগিয়ে যায়।তেমনই এক উদাহরন,উচ্চ মাধ্যমিকে রাজ্যে একাদশ হওয়া গাইঘাটার সায়ন সাহা।উত্তর ২৪ পরগনার জেলার মধ্যে তাঁর স্থান ষষ্ঠ।উচ্চ মাধ্যমিকে ৫০০-র মধ্যে সায়নের প্রাপ্ত নম্বর ৪৮৮। গাইঘাটা ব্লকের চাঁদপাড়া বাণী বিদ্যাবিথী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের ছাত্র ছিলেন তিনি।

emeAcademy-BBA

বাবা মানসিক অসুস্থতার জেরে শয্যাশায়ী। বাদাম প্যাকেজিংয়ের কাজ করে যথাসামান্যই আয় মায়ের। টানাটানির সংসারে তাই রোজগারে জুটে পড়েছেন ছেলে। তবে সে জন্য উচ্চ মাধ্যমিকের পড়াশোনায় অবহেলা করেননি। বাড়ি বাড়ি জল বিক্রি করার ফাঁকেও পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন তবে এই নম্বর পাওয়ার জন্য সংসারের হাজারো প্রতিকূলতা সত্ত্বেও দিনরাত খেটেছেন সায়ন। পড়াশোনার খরচ জোগাতে মা এবং নিজের রোজগার ছাড়াও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাঁর ঠাকুরমা।

emeAcademy-BHM
StartupPedia

জানা গেছে,সাধারণত সন্ধে ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত পড়াশোনা করত সায়ন। তারপর জলের ব্যবসায় কাজে যেত। কারও জলের প্রয়োজন হলে রাত ১০টার পর তাঁদের জল দিতে যেত সে নিজে।এরপর রাত ১১টা পর্যন্ত কাজ করে খাওয়াদাওয়া সেরে ঘুমাতে যেত।এই ছিল সায়নের নিত্যদিনের রুটিন।

emeAcademy-MBA

নিজের পায়ে দাঁড়াতে চান সায়নও। ভবিষ্যতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের গোয়েনকা কলেজে বাণিজ্য নিয়ে পড়াশোনা করার ইচ্ছে রয়েছে তার। তবে উচ্চশিক্ষার জন্য অর্থিক প্রতিকূলতা ভাবাচ্ছে তাঁকে। যদিও সায়নের পড়াশোনায় সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন গাইঘাটা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি গোবিন্দ দাস। তিনি বলেন, ”এ বিষয়টি নিয়ে আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হওয়া চেষ্টা করব।”সব মিলিয়ে ছেলের এই সাফল্যে গর্বিত সায়নের মা সহ পরিবারের সকলেই।

Hospitech

editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related post

Shares