• May 29, 2022

পরিকল্পনা করেই কুপিয়ে খুন প্রেমিকাকে, কিন্তু কেন? জানুন আসল কারণ

 পরিকল্পনা করেই কুপিয়ে খুন প্রেমিকাকে, কিন্তু কেন? জানুন আসল কারণ

আসমান ডেস্ক: জনসম্মুখে ধারালো ছুরি দিয়ে একের পর এক কোপ। মুর্শিদাবাদের বহরমপুরের গোরাবাজার এলাকার এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে সুতপা চৌধুরী নামে মহিলার। খুনের দায়ে গ্রেফতার হয়েছে মৃতার প্রেমিক সুশান্ত চৌধুরীকে। ঘটনার পর যতই সময় গড়াচ্ছে, বেরিয়ে আসছে নতুন নতুন তথ্য। কেন নিজের প্রেমিকাকে খুন করল সুশান্ত? এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন।

emeAcademy-BBA

গত সোমবার ভরসন্ধ্যায় গোরবাজারের রাস্তায় সুতপাকে একের পর এক ছুরির কোপ মারে সুশান্ত। খুনের যে ভিডিয়ো ছড়িয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে রাস্তায় পড়ে কাতরাচ্ছেন সুতপা।স্থানীয় বাসিন্দারা এগিয়ে এলে তাঁদের বন্দুক দেখিয়ে ভয় দেখায় সুশান্ত। এই কাণ্ড ঘটনোর পর কিছুক্ষণ সেখানেই ছিল সুশান্ত। সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গিয়েছে, সুতপার ক্ষত-বিক্ষত শরীরেই সমানে লাথি মেরে যাচ্ছে সুশান্ত। তারপরেই এলাকা ছাড়ে অভিযুক্ত।

emeAcademy-BHM
StartupPedia

রাত ১০টা নাগাদ সামশেরগঞ্জ-মালদহগামী একটি বাস থেকে সুশান্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে নাকা চেকিংয়ের সময় ওই বাসটিকেও দাঁড় করানো হয়েছিল। বুটে রক্তের দাগ দেখে পুলিশ সুশান্তকে চিহ্নিত করে। এরপর পুলিশের জেরায় সুশান্ত জানিয়েছে, প্রায় মাসখানেক আগে থেকেই সুতপাকে খুনের পরিকল্পনা করছিল সে। তাই আগে থেকেই রেইকি করে রেখেছিল সুশান্ত। খুনের পর গা ঢাকা দেওয়ার জন্য ট্যাক্সি, ব্যাগে অতিরিক্ত জামা-প্যান্ট সবকিছুর ব্যবস্থাই আগে থেকে করে রেখেছিল সে। পুলিশের চোখে ধুলো দিতে বার বার গাড়ি বদলানোর পরিকল্পনাও আগে থেকেই করে রেখেছিল সে। কিন্তু কেন?

emeAcademy-MBA

জেরায় সুশান্ত জানান, গত বছর ফেব্রুয়ারিতে মন্দিরে সুতপার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তার। তারপরেই অন্য কারও প্রেমে পড়েছিলেন সুতপা। যে কারণে সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে দিতে চাইছিলেন। সুশান্তের পরিবারের সদস্যদেরও একই বক্তব্য। সুশান্তর কাকিমা জানিয়েছেন, সুতপার সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙতে রাজি না হওয়ায় সুশান্তকে ক্লাবের ছেলেদের দিয়ে মার খাইয়েছিলেন সুতপার বাবা। এমনকী তার ল্যাপটপও কেড়ে নেওয়া হয়েছিল। সুতপার থেকে দূরে থাকার জন্য যখন তখন হুমকি দেওয়া হত।

emeAcademy-MBA

মঙ্গলবার সুশান্তকে আদালতে তোলা হলে দশ দিনের পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ আসে। তদন্তকারী আধিকারিকরা জানিয়েছেন, গ্রেফতারের পর সুশান্ত পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছিল, সুতপা বেঁচে আছে কী না! গ্রেফতারির পর থেকে সুশান্ত একটি দানাও না কি দাঁতে কাটেনি। কখনও আত্মহত্যা করার কথা বলছে, অনুশোচনায় ফুঁপিয়ে কেঁদে উঠছে। আবার কখনও আক্রমণত্বক হয়ে উঠছে। যা করেছে ঠিক করেছে মনোভাব দেখা যাচ্ছে। এদিকে শোকের ছায়া সুতপা চৌধুরীর পরিবারে।

Hospitech

editor

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related post

Shares